ভারত বাংলাদেশ যৌথ নদী কমিশনের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য -

 দুদেশের নদীগুলোর নাব্যতা বৃদ্ধি


'৫০০ দিনের প্লান' বলতে বুঝায় যে এই সময়ের মধ্যে-

সোভিয়েত ইউনিয়নে প্রস্তাবিত বাজার অর্থনীতি প্রচলন করা

 


এফটা –[AFTA] বলতে বোঝায় -

একটি বাণিজ্যিক গোষ্ঠী


ওডার-নীস নদী -

পূর্ব জার্মানি ও পোল্যান্ডের মধ্যে সীমা নির্ধারক

 


৬ দফা

 ১৯৬৬


বাংলাদেশের উষ্ণতম

 লালপুর , নাটোর


এমডিজির অন্যতম লক্ষ্য –

ক্ষুধা ও দারিদ্র দূর করা


বর্তমানে সময়ে বাংলাদেশ সরকারের বড় অর্জন কোনটি ? -

তবে যুদ্ধরাধীদের বিচার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তারপর বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ


একনেকে এর চেয়ারম্যান কে

প্রধানমন্ত্রী


বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান

৮৮ডি ০১ থেকে ৯২ ডি ৪১ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে


সোয়াচ অব নো গ্রাউণ্ড’ এর মানে-

বঙ্গোপসাগরের একটি খাদের নাম


বেনেলাক্স” বলতে যে দেশগুলোকে বোঝায়-

বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ড, লুক্সেমবার্গ


আধুনিক অলিম্পিকের প্রবর্তক বা জনক-

ব্যরন পিয়ারে দ্য কুবার্তা


চলন বিল কোথায় আবস্থিত?

পাবনা ও নাটোর জেলায়


কর্কটক্রান্তি রেখা-

বাংলাদেশের মধ্যখান দিয়া গিয়াছে


বি-৫২ কী?

এক ধরনের বোমারু বিমান


‘৫০০ দিনের প্লান’ বলতে বুঝায় যে এই সময়ের মধ্যে-

সোভিয়েত ইউনিয়নে প্রস্তাবিত বাজার অর্থনীতি প্রচলন করা


চীন-বাংলাদেশ মৈত্রী সেতু-১ নিমার্ণের প্রধান উদ্দেশ্য –

দেশের দক্ষিণ অঞ্চলের সঙ্গে ঢাকার পরিবহন ব্যবস্থা উন্নত করে


ওডার-নীস নদী

পূর্ব জার্মানি ও পোল্যান্ডের মধ্যে সীমা নির্ধারক


সাউথ কমিশনের চেয়ারম্যান –

জুলিয়াস নায়ারে


এফটা –[AFTA] বলতে বোঝায় –

একটি বাণিজ্যিক গোষ্ঠী


বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থান কোনটি?

৮৮০ ০১’ ৯২০-৪১’ দক্ষিণ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে


বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে সরকারের বড় অর্জন কোনটি?

সমুদ্র বিজয় (অর্জন…ছিটমহল এসব, বাকি সব চলমান প্রক্রিয়া)


সুন্দরবন-এর কত শতাংশ বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমার মধ্যে পড়েছে?

সুন্দরবন-এর কত শতাংশ বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমার মধ্যে পড়েছে?


MDG –এর অন্যতম লক্ষ্য কি?

ক্ষুধা ও দারিদ্র দূর করা


‘রাজা প্রতাপাদিত্য চরিত্র’ গ্রন্থটির প্রণেতা-

‘রাজা প্রতাপাদিত্য চরিত্র’ গ্রন্থটির প্রণেতা-


নিচের কোনটি বিশেষ্য পদ?

 গাম্ভীর্য (বাংলা একাডেমী, প-৩৫৫)


“YALTA Conference” এর একটি লক্ষ্য ছিল-

জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠা


বাংলাদেশের সাথে ভারতের সীমানা কত?

৩৯৭৮ কি. মিঃ. অনেক জায়গায় আছে, ৪০৯৬


ব্যক্তিগত মূল্যবোধ লালন করে-

সামাজিক মূল্যবোধকে


মূল্যবোধ শিক্ষার অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে-

সাংস্কৃতিক অবরোধ রক্ষণ করা


সাধারণ পরিষদের নিয়মিত অধিবেশন শুরু হয় -

 সেপ্টেম্বর মাসের তৃতীয় মঙ্গলবার


হিরোশিমায় এটম বোম ফেলা হয়েছিল -

১৯৪৫ সালের আগষ্ট মাসে


কোন প্রবচন বাক্য ব্যবহারিক দিক হতে সঠিক ?

অধিক সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্ট

 


কোন প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায় ?

 শিলালিপি নামক প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়


প্রাচীন ভারতের প্রথম ইতিহাসমূলক গ্রন্থ কোনটি ? সেটি কার রচনা ?

 প্রাচীন ভারতের প্রথম ইতিহাসমূলক গ্রন্থের নাম রাজতরঙ্গিনী  । এটি কলহন-এর রচনা ।


ভারতের প্রাচীনতম নাম কি ছিল ?

 ভারতের প্রাচীনতম নাম ছিল জম্বুদ্বীপ ।


কোন রাজার নাম অনুসারে ভারতবর্ষ নামকরণ হয় ?

- পৌরাণিক যুগের সাগর বংশের সন্তান রাজা ভরতের নাম অনুসারে আমাদের দেশের নামটি এসেছে ভারত বা ভারতবর্ষ ।


কোন পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ?

হিমালয় পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ।


কোন নদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে ?

 সিন্ধুনদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে


ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন কারা ?

 আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমণের সময় এদেশে আসা গ্রিকরা ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন , মতান্তরে খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দিতে পারস্য সম্রাট দারায়ুস ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন ।


ভারতকে 'নৃতত্বের জাদুঘর' কে বলেছেন ?

ঐতিহাসিক ভিনসেন্ট স্মিথ ভারতকে 'নৃতত্বের জাদুঘর'  বলেছেন।


দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা কোন জাতির বংশধর ?

দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা দ্রাবিড় জাতির বংশধর  ।


ভারতেরবর্ষে মোঙ্গল জাতির বংশধর কারা ?

আসামি, নেপালি, ভুটিয়া, প্রভৃতি মোঙ্গল জাতির বংশধর ।


বাঙালিরা কোন জাতির বংশধর ?

বাঙালিরা নেগ্রিটো ও নর্ডিক জাতির সংমিশ্রিত বংশধর  ।


সাঁওতালরা কোন জাতির বংশধর ?

সাঁওতালরা নেগ্রিটো জাতির বংশধর  ।


প্রাচীন ভারতের প্রশস্তিমূলক শিলালিপি গুলির নাম করো

  (ক) গুপ্ত সম্রাট সমুদ্র গুপ্তের এলাহাবাদ প্রশস্তি  (খ) চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলকেশীর আইহোল প্রশস্তি  (গ) গুপ্ত সম্রাট স্কন্দগুপ্তের ভিতারি শিলালিপি  (ঘ) গৌতমী বলশ্রী রচিত নাসিক প্রশস্তি ।


কে অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ?

উনিশ শতকের খ্যাতনামা প্রত্নতত্ববিদ জেমস প্রিন্সেপ অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ।


' হস্তিগুম্ফা লিপি' থেকে কোন ভারতীয় রাজার কথা জানা যায় ?

 হস্তিগুম্ফা লিপি' থেকে  কলিঙ্গরাজ খারবেলের কথা জানা যায় ।


বৈদিক সাহিত্যের কোন অংশকে বেদান্ত বলা হয় ?

 উপনিষদকে বৈদিক সাহিত্যের বেদান্ত বলা হয় ?


ভারতের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তের তিনটি গিরিপথের নাম লেখো ।

তিনটি গিরিপথের নাম - খাইবার,বোলান, ও গোমাল


দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম লেখো ।

দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম গোদাবরী


ভারতের কোন কোন দিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ?

দক্ষিণ-পূর্ব , দক্ষিণ-পশ্চিম , দক্ষিণ দিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ।


কার আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ?

শক সম্রাট (মহাক্ষএপ) রুদ্রদামনের আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ।


কোন শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ?

ভিতারি শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ।


নাসিক প্রশস্তিতে কোন সাতবাহন রাজার কীর্তি বর্ণিত আছে ?

 নাসিক প্রশস্তিতে সাতবাহন বংশের শ্রেষ্ঠ রাজা গৌতমীপুত্র সাতকর্ণীর কীর্তি বর্ণিত আছে  ।


নানাঘাট শিলালিপি থেকে কোন রাজার সম্বন্ধে জানা যায় ?

 নানাঘাট শিলালিপি থেকে সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সম্বন্ধে জানা যায় ।


নানাঘাট শিলালিপি কার সময়ে খোদিত হয় ?

 সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সময়ে নানাঘাট শিলালিপি খোদিত হয় ।


বাণভট্ট কার সভাকবি ছিলেন ?

বাণভট্ট হর্ষবর্ধনের সভাকবি ছিলেন ।


কারা নর্ডিক নামে পরিচিত ?

আর্যরা নর্ডিক নামে পরিচিত ।


আর্যজাতির বংশধর কারা ?

কাশ্মিরী, পাঞ্জাবি প্রভৃতি আর্যজাতির বংশধর ।


রাজপুতরা কোন জাতির বংশধর ?

 রাজপুতরা হূন জাতির বংশধর ।


বুদ্ধচরিতের রচয়িতা কে ?

কুষাণ যুগের বৌদ্ধ দার্শনিক অশ্বঘোষ  বুদ্ধচরিত রচনা করেন  ।


কোন প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায় ?

 শিলালিপি নামক প্রত্নতাত্ত্বিক উপাদান থেকে রাজা অশোক ও তাঁর কীর্তিকলাপ সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়


ভারতের প্রাচীনতম নাম কি ছিল ?

 ভারতের প্রাচীনতম নাম ছিল জম্বুদ্বীপ ।


কোন রাজার নাম অনুসারে ভারতবর্ষ নামকরণ হয় ?

পৌরাণিক যুগের সাগর বংশের সন্তান রাজা ভরতের নাম অনুসারে আমাদের দেশের নামটি এসেছে ভারত বা ভারতবর্ষ ।


কোন পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ?

 হিমালয় পর্বতমালা ভারতের উত্তর সীমান্তে বিরাজমান ।


কোন নদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে ?

 সিন্ধুনদীর নাম অনুসারে ভারতবর্ষের নাম ইন্ডিয়া বা হিন্দুস্থান হয়েছে


ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন কারা ?

 আলেকজান্ডারের ভারত আক্রমণের সময় এদেশে আসা গ্রিকরা ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন , মতান্তরে খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতাব্দিতে পারস্য সম্রাট দারায়ুস ভারতবর্ষকে হিন্দুস্থান আখ্যা দিয়েছিলেন ।


ভারতকে 'নৃতত্বের জাদুঘর' কে বলেছেন ?

 ঐতিহাসিক ভিনসেন্ট স্মিথ ভারতকে 'নৃতত্বের জাদুঘর'  বলেছেন।


দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা কোন জাতির বংশধর ?

দক্ষিণ ভারতের অধিবাসীরা দ্রাবিড় জাতির বংশধর  ।


ভারতেরবর্ষে মোঙ্গল জাতির বংশধর কারা ?

আসামি, নেপালি, ভুটিয়া, প্রভৃতি মোঙ্গল জাতির বংশধর ।


বাঙালিরা কোন জাতির বংশধর ?

বাঙালিরা নেগ্রিটো ও নর্ডিক জাতির সংমিশ্রিত বংশধর  ।


সাঁওতালরা কোন জাতির বংশধর ?

 সাঁওতালরা নেগ্রিটো জাতির বংশধর  ।


প্রাচীন ভারতের প্রশস্তিমূলক শিলালিপি গুলির নাম করো

) গুপ্ত সম্রাট সমুদ্র গুপ্তের এলাহাবাদ প্রশস্তি  (খ) চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলকেশীর আইহোল প্রশস্তি  (গ) গুপ্ত সম্রাট স্কন্দগুপ্তের ভিতারি শিলালিপি  (ঘ) গৌতমী বলশ্রী রচিত নাসিক প্রশস্তি 


কে অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ?

উনিশ শতকের খ্যাতনামা প্রত্নতত্ববিদ জেমস প্রিন্সেপ অশোকের শিলালিপির পাঠোদ্ধার করেন ।


হস্তিগুম্ফা লিপি' থেকে কোন ভারতীয় রাজার কথা জানা যায় ?

 হস্তিগুম্ফা লিপি' থেকে  কলিঙ্গরাজ খারবেলের কথা জানা যায় ।


বৈদিক সাহিত্যের কোন অংশকে বেদান্ত বলা হয় ?

উপনিষদকে বৈদিক সাহিত্যের বেদান্ত বলা হয় 


ভারতের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তের তিনটি গিরিপথের নাম লেখো ।

 তিনটি গিরিপথের নাম - খাইবার,বোলান, ও গোমাল


দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম লেখো ।

 দক্ষিণ ভারতের একটি প্রধান নদীর নাম গোদাবরী


ভারতের কোন কোন দিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ?

 দক্ষিণ-পূর্ব , দক্ষিণ-পশ্চিম , দক্ষিণ দিক সমুদ্র দিয়ে বেষ্টিত ।


কার আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ?

শক সম্রাট (মহাক্ষএপ) রুদ্রদামনের আমলে জুনাগড় লিপি রচিত হয় ।


কোন শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ?-

ভিতারি শিলালিপি থেকে স্কন্দগুপ্তের হূণ আক্রমণকারীদের পরাজিত করার তথ্য পাওয়া যায় ।


এলাহাবাদ প্রশস্তি কার রচনা ?

এলাহাবাদ প্রশস্তি সমুদ্র গুপ্তের সভাকবি হরিষেণের রচনা  ।


নানাঘাট শিলালিপি থেকে কোন রাজার সম্বন্ধে জানা যায় ?

 নানাঘাট শিলালিপি থেকে সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সম্বন্ধে জানা যায় ।


নানাঘাট শিলালিপি থেকে সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সম্বন্ধে জানা যায় ।

সাতবাহন রাজা প্রথম সাতকর্ণীর সময়ে নানাঘাট শিলালিপি খোদিত হয় ।


বাণভট্ট কার সভাকবি ছিলেন ?

বাণভট্ট হর্ষবর্ধনের সভাকবি ছিলেন ।


হর্ষচরিত কার রচনা ?

 হর্ষচরিত হর্ষবর্ধনের সভাকবি বাণভট্টের রচনা ।


বাণভট্টের লেখা একটি জীবন চরিতের নাম লেখো ?

 বাণভট্টের লেখা একটি জীবন চরিতের নাম হর্ষচরিত  ।


রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি কে রচনা করেন ?

 রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি কলহন রচনা করেন ।


কলহনের রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি থেকে কোন অঞ্চলের ইতিহাস জানা যায় ?

 কলহনের রাজতরঙ্গিনী গ্রন্থটি থেকে কাশ্মীরের ইতিহাস জানা যায় ।


আইহোল প্রশস্তি কে রচনা করেন ?

 চালুক্যরাজ দ্বিতীয় পুলাকেশীর সভাকবি রবিকীর্তি  আইহোল প্রশস্তি রচনা করেন ।


মুদ্রারাক্ষস কার রচনা ?

মুদ্রারাক্ষস গুপ্তযুগের লেখক-কবি বিশাখাদত্তের রচনা ।


প্রাচীন ভারতীয় জাতিগোষ্ঠিকে প্রধানত কয়টি শ্রেণীতে বিভাক্ত করা যায় ?

 প্রাচীন ভারতীয় জাতিগোষ্ঠিকে প্রধানত চারটি শ্রেণীতে বিভাক্ত করা যায় - যথা :- (ক) আর্য জাতি   (খ) দ্রাবিড় জাতি   (গ) নেগ্রিটো জাতি   (ঘ)  মঙ্গোলীয় জাতি ।


আর্যজাতির বংশধর কারা ?

কাশ্মিরী, পাঞ্জাবি প্রভৃতি আর্যজাতির বংশধর ।


রাজপুতরা কোন জাতির বংশধর ?

 রাজপুতরা হূন জাতির বংশধর ।


বুদ্ধচরিতের রচয়িতা কে ?

কুষাণ যুগের বৌদ্ধ দার্শনিক অশ্বঘোষ  বুদ্ধচরিত রচনা করেন  ।


গীতগোবিন্দ কাব্য কে রচনা করেন ?

কবি জয়দেব গীতগোবিন্দ কাব্য রচনা করেন


গৌরবাহ গ্রন্থের রচয়িতা কে ?

বাকপতি রাজ গৌরবাহ গ্রন্থের রচয়িতা 

 

 


মহাকবি কালিদাসের লেখা উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ গুলির নাম লেখো

 মহাকবি কালিদাসের লেখা  কাব্যগ্রন্থ গুলির মধ্যে 'অভিজ্ঞানম শকুন্তলম' , 'মেঘদূত' ,' মালবিকা'প্রভৃতি  উল্লেখযোগ্য ।


ইন্ডিকা কে রচনা করেন ?

চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজসভায় উপস্থিত গ্রিক্দূত মেগাস্থিনিস ইন্ডিকা রচনা করেন ।


কোন বিদেশী লেখকের রচনা থেকে আমরা মৌর্যযুগের ইতিহাস জানতে পারি ?

চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজসভায় উপস্থিত গ্রিক্দূত মেগাস্থিনিসের রচনা থেকে আমরা মৌর্যযুগের ইতিহাস জানতে পারি


সন্ধ্যাকর নন্দী কে ছিলেন ?

 রামচরিত গ্রন্থের রচয়িতা ছিলেন সন্ধ্যাকর নন্দী ।


আইন-ই-আকবরি কে রচনা করেন ?

আবুল ফজল আইন-ই-আকবরি রচনা করেন ।


প্লিনি রচিত গ্রন্থটির নাম কী ?

প্লিনি রচিত গ্রন্থটির নাম ন্যাচারালিস হিস্টোরিয়ো । প্রথম শতাব্দিতে রচিত এই গ্রন্থ থেকে ভারতের সঙ্গে রোমান সাম্রাজ্যের বাণিজ্যিক লেনদেনের পরিচয় পাওয়া যায় ।


সপ্তবর্ষব্যাপী যুদ্ধের অবসান ঘটে কত খ্রিস্টাব্দে ?

১৭৬৩ খ্রিস্টাব্দে সপ্তবর্ষব্যাপী যুদ্ধের অবসান ঘটে ।


বন্দিবাসের যুদ্ধ কবে কাদের মধ্যে সংঘটিত হয় ?

বন্দিবাসের যুদ্ধ ১৭৬০ খ্রিস্টাব্দে ইংরেজ ও ফরাসিদের মধ্যে সংঘটিত হয় ।


বন্দিবাসের যুদ্ধে করা বিজয়ী হয় ?

বন্দিবাসের যুদ্ধে ইংরেজরা বিজয়ী হয় ।


সাগৌলির চুক্তি কাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয়েছিল ?

 নেপালের রাজা ও ইংরেজদের মধ্যে সাগৌলির চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ।


কবে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি দেওয়ানি লাভ করে ?

১৭৬৫ খ্রিস্টাব্দে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি দেওয়ানি লাভ করে ।


কোন মোগল সম্রাট ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিকে দেওয়ানি আদায়ের অধিকার দেন ?

মোগল সম্রাট দ্বিতীয় শাহ আলম ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিকে দেওয়ানি আদায়ের অধিকার দেন ।

 

- সপ্তবর্ষব্যাপী যুদ্ধের অবসান ঘটে কত খ্রিস্টাব্দে ?

 ১৭৬৩ খ্রিস্টাব্দে সপ্তবর্ষব্যাপী যুদ্ধের অবসান ঘটে ।


বন্দিবাসের যুদ্ধ কবে কাদের মধ্যে সংঘটিত হয় ?

বন্দিবাসের যুদ্ধ ১৭৬০ খ্রিস্টাব্দে ইংরেজ ও ফরাসিদের মধ্যে সংঘটিত হয় ।


বন্দিবাসের যুদ্ধে করা বিজয়ী হয় ?

বন্দিবাসের যুদ্ধে ইংরেজরা বিজয়ী হয় ।


সাগৌলির চুক্তি কাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয়েছিল ?

 নেপালের রাজা ও ইংরেজদের মধ্যে সাগৌলির চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল


কবে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি দেওয়ানি লাভ করে ?

১৭৬৫ খ্রিস্টাব্দে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি দেওয়ানি লাভ করে ।


- কোন মোগল সম্রাট ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিকে দেওয়ানি আদায়ের অধিকার দেন ?

 মোগল সম্রাট দ্বিতীয় শাহ আলম ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিকে দেওয়ানি আদায়ের অধিকার দেন ।


বাংলায় দ্বৈত শাসনব্যবস্থা কে প্রবর্তন করেন ?

লর্ড ক্লাইভ বাংলায় দ্বৈত শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করেন ।


- বাংলায় দ্বৈত শাসনব্যবস্থা কে প্রবর্তন করেন ?

লর্ড ক্লাইভ বাংলায় দ্বৈত শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করেন ।


দ্বৈত শাসনব্যবস্থা কে রদ করেন ?

ওয়ারেন হেস্টিংস দ্বৈত শাসনব্যবস্থা কে রদ করেন  ।


ইংরেজরা কার কাছ থেকে বাংলা-বিহার-উড়িষ্যার দেওয়ানি লাভ করে ?

মোগল সম্রাট দ্বিতীয় শাহ আলমের কাছ থেকে ইংরেজরা বাংলা-বিহার-উড়িষ্যার দেওয়ানি লাভ করে ।


কোন সময় থেকে ভারতবর্ষে ঔপনিবেশিক শোষণ শুরু হয় ?

 ১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের জয় লাভের পর থেকে ভারতবর্ষে ঔপনিবেশিক শোষণ শুরু হয় ।


ডুপ্লে কে ছিলেন ?

ডুপ্লে ছিলেন  পন্ডিচেরীর ফরাসি শাসনকর্তা ।


প্রথম কর্ণাটকের যুদ্ধের সময় কর্ণাটকের নবাব কে ছিলেন ?

প্রথম কর্ণাটকের যুদ্ধের সময় কর্ণাটকের নবাব ছিলেন নবাব আনওয়ারউদ্দিন


দ্বিতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধের সময় পন্ডিচেরীর গভর্নর কে ছিলেন ?

 দ্বিতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধের সময় পন্ডিচেরীর গভর্নর ছিলেন জোসেফ ডুপ্লে ।


কোন যুদ্ধের ফলে ভারতে ঈঙ্গ-ফরাসি প্রতিদ্বন্দিতার অবসান হয় ?

তৃতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধের ফলে ভারতে ঈঙ্গ-ফরাসি প্রতিদ্বন্দিতার অবসান হয়।


তৃতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধের সময় বাংলায় ফরাসিদের পৃষ্ঠপোষক কে ছিলেন ?

তৃতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধের সময় বাংলায় ফরাসিদের পৃষ্ঠপোষক ছিলেন নবাব সিরাজউদ্দৌলা ।


তৃতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধে ফরাসি ও ইংরেজদের প্রধান সেনানায়কদের নাম কী ?

 তৃতীয় কর্ণাটকের যুদ্ধে ফরাসি সেনানায়ক ছিলেন কাউন্ট-দ্য-লালি এবং ইংরেজ সেনানায়ক ছিলেন স্যার আয়ার কুট 


ছিয়াত্তরের মন্বন্তর ইংরেজির কোন সালে ঘটে ?

১৭৭০ খ্রিস্টাব্দে ছিয়াত্তরের মন্বন্তর ঘটে ।


মোট কয়টি কর্নাটক যুদ্ধ সংঘটিত হয় ?

৩টি কর্নাটকের যুদ্ধ সংঘটিত হয়।


সুলেহ কুল শব্দের অর্থ কী ?

সুলেহ কুল শব্দের অর্থ হল পরধর্ম সহিষ্ণুতা ।


- জাহাঙ্গীর কে ছিলেন ?

জাহাঙ্গীর ছিলেন সম্রাট আকবরের পুত্র ও পরবর্তীকালে মোগল সম্রাট ।


জাহাঙ্গীর কত খ্রিস্টাব্দে সিংহাসনে বসেছিলেন ?

- জাহাঙ্গীর ১৬০৫ খ্রিস্টাব্দে সিংহাসনে বসেছিলেন ।


জাহাঙ্গীর কত খ্রিস্টাব্দে সিংহাসনে বসেছিলেন ?

- জাহাঙ্গীর ১৬০৫ খ্রিস্টাব্দে সিংহাসনে বসেছিলেন ।


কোন মোগল সম্রাটের রাজত্বকালে স্যার টমাস রো ভারতবর্ষে এসেছিলেন ?

 মোগল সম্রাট জাহাঙ্গীরের রাজত্বকালে স্যার টমাস রো ভারতবর্ষে এসেছিলেন  ।


- কোন মোগল সম্রাটের রাজত্বকালে মেবার মোগল আধিপত্য স্বীকার করে ?

 মোগল সম্রাট জাহাঙ্গীরের রাজত্বকালে মেবার মোগল আধিপত্য স্বীকার করে ।


ময়ুর সিংহাসন কে তৈরি করেছিলেন ?

সম্রাট শাহজাহান ময়ুর সিংহাসন তৈরি করেছিলেন ।


ময়ুর সিংহাসন কে তৈরি করেছিলেন ?

সম্রাট শাহজাহান ময়ুর সিংহাসন তৈরি করেছিলেন ।


পারস্য সম্রাট নাদীর শাহ কোন বছর ভারত আক্রমণ করেন ?

 ১৭৩৯ খ্রিস্টাব্দে পারস্য সম্রাট নাদীর শাহ ভারত আক্রমণ করেন ।


পাণিপথের তৃতীয় যুদ্ধ কবে সংঘটিত হয়েছিল ?

১৭৬১ খ্রিস্টাব্দে পাণিপথের তৃতীয় যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল ।


পাণিপথের তৃতীয় যুদ্ধ কাদের মধ্যে সংঘটিত হয়েছিল ?

 ১৭৬১ খ্রিস্টাব্দে পাণিপথের তৃতীয় যুদ্ধ মারাঠা শক্তি এবং আহম্মদ শাহ আবদালীর মধ্যে সংঘটিত হয়েছিল ।


গো-ব্রাহ্মণ পালক অভিধা কে গ্রহন করেছিলেন ?

 শিবাজী গো-ব্রাহ্মণ পালক অভিধা গ্রহন করেছিলেন।


ঔরঙ্গজেবের কোন মোগল সেনাপতিকে পালিয়ে যেতে শিবাজী বাধ্য করেছিলেন ?

 ঔরঙ্গজেবের সেনাপতি শায়েস্তা খাঁ কে শিবাজী পালিয়ে যেতে বাধ্য করেছিলেন ।


পুরন্দরের সন্ধি কাদের মধ্যে হয়েছিল ?

 মোগল সম্রাট ঔরঙ্গজেবের আমলে মোগলদের সঙ্গে শিবাজীর পুরন্দরের সন্ধি হয়েছিল ।


পুরন্দরের সন্ধি কবে হয়েছিল ?

 ১৬৬৫ খ্রিস্টাব্দে মোগল সম্রাট ঔরঙ্গজেবের আমলে মোগলদের সঙ্গে শিবাজীর পুরন্দরের সন্ধি হয়েছিল ।


বাংলার প্রথম স্বাধীন নবাব কে ছিলেন ?

 নবাব মুর্শিদকুলি খাঁ বাংলার প্রথম স্বাধীন নবাব ছিলেন ।


কত খ্রিস্টাব্দে পর্তুগীজদের বাংলা থেকে বিতারিত করা হয় ?

১৬৩২ খ্রিস্টাব্দে পর্তুগীজদের বাংলা থেকে বিতারিত করা হয় ।


আলমগির-বাদশাহ-গাজি উপাধি কে গ্রহন করেছিলেন ?

 সম্রাট ঔরঙ্গজেব আলমগির-বাদশাহ-গাজি উপাধি গ্রহন করেছিলেন ।


কত খ্রিস্টাব্দে ঔরঙ্গজেবের মৃত্যু হয় ?

১৭০৭  খ্রিস্টাব্দে ঔরঙ্গজেবের মৃত্যু হয় ।


মারাঠা শক্তির প্রতিষ্ঠাতা কে ছিলেন ?

শিবাজী মারাঠা শক্তির প্রতিষ্ঠাতা  ছিলেন ।


কবে শিবাজীর রাজ্যাভিষেক হয় ?

১৬৭৪ খ্রিস্টাব্দে শিবাজীর রাজ্যাভিষেক হয় ।


কোন দুর্গে শিবাজীর রাজ্যাভিষেক হয় ?

রায়গড় দুর্গে ১৬৭৪ খ্রিস্টাব্দে শিবাজীর রাজ্যাভিষেক হয় ।


সিরাজদৌলার পূর্বে বাংলার নবাব কে ছিলেন ?

সিরাজদৌলার পূর্বে বাংলার নবাব ছিলেন নবাব আলিবর্দি খাঁ ।


কত খ্রিস্টাব্দে পলাশির যুদ্ধ হয়েছিল ?

১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে পলাশির যুদ্ধ হয়েছিল ।


পলাশির যুদ্ধ কাদের মধ্যে হয়েছিল ?

১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে সুবে বাংলার নবাব সিরাজদৌলার সঙ্গে ইংরেজদের পলাশির যুদ্ধ হয়েছিল।


পলাশির যুদ্ধে সিরাজদৌলার বিপক্ষে কারা ছিলেন ?

পলাশির যুদ্ধে  রাজবল্লভ, ঘসিটি বেগম , মিরন  সিরাজদৌলার বিপক্ষে ছিলেন ।


ভারতে তোতাপাখি নামে কে পরিচিত ?

 সুলতানি যুগের বিখ্যাত কবি ও সঙ্গীতজ্ঞ এবং শ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক আমির খসরু ভারতে তোতাপাখি নামে  পরিচিত ।


বাংলা ভাষায় প্রথম রামায়ন কে রচনা করেন ?

কবি কৃত্তিবাস বাংলা ভাষায় প্রথম রামায়ন রচনা করেন ।


শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য কে রচন করেন ?

 কবি চন্ডীদাস শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য রচন করেন ।


শফরনামা কাব্য কে রচনা করেন ?

পন্ডিত ইব্রাহিম কায়ুম ফারুকি শফরনামা কাব্য রচনা করেন  


মনসামঙ্গল কাব্য কে রচনা করেন ?

কবি বিজয়গুপ্ত মনসামঙ্গল কাব্য রচনা করেন ।


মনসামঙ্গল কাব্যের রচয়িতা কবি বিজয়গুপ্ত কার আমলের কবি ?

 মনসামঙ্গল কাব্যের রচয়িতা কবি বিজয়গুপ্ত শাহি বংশের সুলতান জালালউদ্দিন ফতে শাহেরআমলের কবি ।


সুলতানি যুগের উল্লেখযোগ্য স্থাপত্যশিল্পের একটি উদাহরণ দাও ?

 কুতুবমিনার একটি সুলতানি যুগের উল্লেখযোগ্য স্থাপত্যশিল্প।


আদিনা মসজিদ কোথায় অবস্থিত ?

 আদিনা মসজিদ পশিমবাংলার পান্ডুয়ায় অবস্থিত ।


হুসেন শাহের দুজন হিন্দু রাজকর্মচারীর নাম করো ?

রূপ গোস্বামী  সনাতন গোস্বামী ছিলেন হুসেন শাহের দুজন হিন্দু রাজকর্মচারী ।


হুসেন শাহি আমলের দুজন কবি ও সাহিত্যিকের নাম করো ?

কবিকঙ্কণ  শ্রীকর নন্দী হলেন হুসেন শাহি আমলের দুজন কবি ও সাহিত্যিক ।


কবিকঙ্কণ কে ছিলেন ?

কবিকঙ্কণ সুলতান নসরৎশাহের আমলের একজন বিখ্যাত কবি ।


সুলতান নসরৎ শাহের আমলের দুটি স্থাপত্যশিল্পের উল্লেখ কারো ?

 বড়ো সোনা মসজিদ এবং কদম রসুল সুলতান নসরৎ শাহের আমলের দুটি উল্লেখযোগ্য  স্থাপত্যশিল্প ।


বাংলার কোন সুলতানের আমলে শ্রীচৈতন্যের আবির্ভাব হয় ?

সুলতান হুসেন শাহের আমলে শ্রীচৈতন্যের আবির্ভাব হয় ।


সুলতানি আমলের কবি পরমেশ্বর মহাভারতের বঙ্গানুবাদ প্রথম করেন ।

 শ্রীকৃষ্ণবিজয় কাব্যের রচয়িতা কে ছিলেন ?


চৈতন্যচরিতামৃত কার লেখা ?

চৈতন্যচরিতামৃত কৃষ্ণদাস কবিরাজের লেখা ।


নানকের ধর্মমতের মূল কথা কী ?

 নানকের ধর্মমতের মূল কথা হল এক-ঈশ্বর , গুরু , এবং নামজপ ।


শিখদের দশম গুরু কে ছিলেন ?

গুরু গোবিন্দ সিংহ ছিলেন শিখদের দশম গুরু ।


পালযুগে বৌদ্ধধর্মের কোন মতবাদ বেশি গুরুত্ব লাভ করেছিল ?

 পালযুগে বৌদ্ধধর্মের সহজযান বা সহজিয়া মতবাদ বেশি গুরুত্ব লাভ করেছিল ।


পাল স্থাপত্য শিল্পকলার শ্রেষ্ঠ নিদর্শন কী ?

পাল স্থাপত্য শিল্পকলার শ্রেষ্ঠ নিদর্শন হল মগধে প্রতিষ্ঠিত বিক্রমশীলা মহাবিহার ।


পাল ও সেনযুগে বাংলার শ্রেষ্ঠ বন্দরের নাম কী ?

 পাল ও সেনযুগে বাংলার শ্রেষ্ঠ বন্দরের নাম ছিল তাম্রলিপ্ত ।


বাংলার কৌলিন্য প্রথার প্রবর্তন কে করেন ?

 সেনরাজা বল্লালসেন বাংলার কৌলিন্য প্রথার প্রবর্তন করেন ।


মহাবলীপুরমের রথ কী ?

 মহাবলীপুরমের রথ হল পল্লবযুগে মামল্ল শিল্পরীতি অনুসরণ করে একটি পাথর কেটে নির্মিত রথাকৃতি মন্দির ।


দায়ভাগ কে রচনা করেন ?

 জীমুতবাহন দায়ভাগ রচনা করেন ।


প্রাচীন ভারতের কবি ভারবী তাঁর কোন রচনার জন্য খ্যাত ?

 কবি ভারবী তাঁর কিরাতার্জুনীয় গ্রন্থ রচনার জন্য খ্যাত ।


চরক কে ছিলেন ?

 চরক ছিলেন কুষাণ সম্রাট প্রথম কনিষ্কের ব্যক্তিগত চিকিৎসক ।


প্রাচীন ভারতের চিকিৎসাশাস্ত্র সংক্রান্ত প্রথম প্রামাণ্য গ্রন্থ কোনটি ?

 প্রাচীন ভারতের চিকিৎসাশাস্ত্র সংক্রান্ত প্রথম প্রামাণ্য গ্রন্থ হল চরক-সংহিতা ।


তুর্কিরা যখন বঙ্গদেশ জয় করে ,তখন সেখানে কে শাসক ছিলেন ?

 তুর্কিরা যখন বঙ্গদেশ জয় করে ,তখন সেখানে শাসক ছিলেন সেন রাজা লক্ষ্মণসেন ।


আলাউদ্দিন খলজি কত খ্রিস্টাব্দে সিংহাসনে বসেন ?

 আলাউদ্দিন খলজি ১২৯৬ খ্রিস্টাব্দে সিংহাসনে বসেন।


দিল্লীর সামরিক বাহিনীতে 'দাগ' ও 'হুলিয়া' প্রথার প্রবর্তন কে করেন ?

 সুলতান আলাউদ্দিন খলজি দিল্লীর সামরিক বাহিনীতে 'দাগ' ও 'হুলিয়া' প্রথার প্রবর্তন করেন ।


কত খ্রিস্টাব্দে স্যার টমাস রো জাহাঙ্গীরের রাজদরবারে এসেছিলেন ?

১৬১৫ খিস্টাব্দে  স্যার টমাস রো জাহাঙ্গীরের রাজদরবারে এসেছিলেন।


কত খ্রিস্টাব্দে কলকাতা নগরীর পত্তন হয় ?

 ১৬৯০ খ্রিস্টাব্দে কলকাতা নগরীর পত্তন হয়।


- কোন মোগল সম্রাটের আমলে কলকাতা নগরীর পত্তন হয় ?

মোগল সম্রাট ঔরঙ্গজেবের আমলে কলকাতা নগরীর পত্তন হয় ।


কত খ্রিস্টাব্দে কলকাতার ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গ নির্ণিত হয় ?

১৬৯৬ খ্রিস্টাব্দে কলকাতার ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গ নির্ণিত হয় ।


কলকাতার ফোর্ট উইলিয়ামের কেন ওই নাম করণ হয় ?

 ইংল্যান্ডের তৎকালীন রাজা তৃতীয় উইলিয়ামের নামানুসারে কলকাতার ফোর্ট উইলিয়াম দুর্গের ওই নাম করণ করা হয় ।


মোগল যুগের একটি প্রধান আমদানি পণ্যের নাম করো ?

মোগল যুগের একটি প্রধান আমদানি পণ্যের নাম হল উন্নত শ্রেণির বিদেশি ঘোড়া 


মোগল যুগের একটি প্রধান রপ্তানি পণ্যের নাম করো ?

মোগল যুগের একটি প্রধান রপ্তানি পণ্যের নাম হল মসলিন বস্ত্র ।


মোগল যুগে কাসবস কাকে বলা হত ?

 মোগল যুগে ছোট শহর এবং গ্রামীণ বাজারকে কাসবস কাকে বলা হত ।


মোগল যুগে ইউরোপিয় বণিকরা ভারত থেকে কী কী পণ্যদ্রব্য ক্রয় করত ?

মোগল যুগে ইউরোপিয় বণিকরা ভারত থেকে সুতি,রেশমি বস্ত্র , সোরা ও চিনি কিনে নিয়ে অন্যত্র রপ্তানি করত।


মোগল যুগে দুটি বিখ্যাত বন্দরের নাম কারো ?

 মোগল যুগে দুটি বিখ্যাত বন্দরের নাম সুরাট ও কালিকট ।


ভারত থেকে ইংরেজ বণিকদের দুটি রপ্তানি পণ্যের নাম কী ?

ভারত থেকে ইংরেজ বণিকদের দুটি রপ্তানি পণ্যের নাম হল রেশমবস্ত্র ও সোরা ।


বাংলায় ওলন্দাজ বণিকদের একটি বাণিজ্য কুঠির নাম কী ?

বাংলায় ওলন্দাজ বণিকদের একটি বাণিজ্য কুঠির নাম হল চুঁচুড়া ।


কোন বৈদেশিক পর্যটক ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ?

বৈদেশিক পর্যটক এডয়ার্ড টেরি ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ।


কোন বৈদেশিক পর্যটক ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ?

বৈদেশিক পর্যটক এডয়ার্ড টেরি ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ।


কোন বৈদেশিক পর্যটক ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ?

বৈদেশিক পর্যটক এডয়ার্ড টেরি ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ।


কোন বৈদেশিক পর্যটক ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ?

বৈদেশিক পর্যটক এডয়ার্ড টেরি ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ।


কোন বৈদেশিক পর্যটক ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ?

বৈদেশিক পর্যটক এডয়ার্ড টেরি ভারতীয় রঞ্জনশিল্পের নৈপুন্য দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন ।


মোগল যুগে ভারতের জরির কাজের প্রধান প্রধান দুটি কেন্দ্রের নাম কী ?

 মোগল যুগে ভারতের জরির কাজের প্রধান প্রধান দুটি কেন্দ্রের নাম হল ফৈজাবাদ ও খান্দেশ ।


মোগল যুগে কোন কোন স্থান শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ?

 মোগল যুগে কাশ্মির ও লাহোর শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ।


মোগল যুগে কোন কোন স্থান শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ?

 মোগল যুগে কাশ্মির ও লাহোর শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ।


মোগল যুগে কোন কোন স্থান শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ?

 মোগল যুগে কাশ্মির ও লাহোর শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ।


মোগল যুগে কোন কোন স্থান শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ?

 মোগল যুগে কাশ্মির ও লাহোর শাল ও গালিচা শিল্পের জন্য বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল ।


মোগল যুগে গোলকোন্ডার খনি থেকে কী কী খনিজ দ্রব্য পাওয়া যেত ?

মোগল যুগে গোলকোন্ডার খনি থেকে হিরে ও উন্নত মানের লোহা পাওয়া যেত।


মোগল যুগে কোন কোন দেশের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্য সম্পর্ক ছিল ?

 মোগল যুগে শ্রীলঙ্কা, বার্মা, চিন, জাপান, নেপাল, পারস্য, রোম প্রভৃতি দেশের সঙ্গে ভারতের বাণিজ্য সম্পর্ক ছিল ।


কোন সালে ইংল্যান্ডের রাজা দ্বিতীয় চার্লস যৌতুক হিসাবে ভারতের কোন শহর লাভ করেন ?

১৬৬১ খ্রিস্টাব্দে ইংল্যান্ডের রাজা দ্বিতীয় চার্লস যৌতুক হিসাবে ভারতের মুম্বই শহর লাভ করেন ।


কোন সালে ভারতের কোন স্থানে প্রথম ফরাসি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করা হয় ?

 ১৬৬৭ সালে ভারতের সুরাটে প্রথম ফরাসি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করা হয় ।


ফারুকশিয়ারের ফরমান কী ?

ব্রিটিশ ইস্টইন্ডিয়া কোম্পানিকে মোগল সম্রাট ফারুকশিয়ারের প্রদত্ত বাংলায় বিনাশুল্কে বহির্বাণিজ্যের অনুমতিপত্র 


কোন সালে ব্রিটিশ ইস্টইন্ডিয়া কোম্পানির স্বপক্ষে ফারুকশিয়ারের ফরমান জারি করা হয় ?

১৭১৭ সালে ব্রিটিশ ইস্টইন্ডিয়া কোম্পানির স্বপক্ষে ফারুকশিয়ারের ফরমান জারি করা হয় ।


কে কাকে বাংলায় বিনাশুল্কে বাণিজ্যের অধিকার দেন ?

 মোগল সম্রাট ফারুকশিয়ার  ব্রিটিশ ইস্টইন্ডিয়া কোম্পানিকে বাংলায় বিনাশুল্কে বাণিজ্যের অধিকার দেন 


কত খ্রিস্টাব্দে সিরাজউদ্দৌলা বাংলার সিংহাসনে বসেন ?

১৭৫৬ খ্রিস্টাব্দে সিরাজউদ্দৌলা বাংলার সিংহাসনে বসেন ।


সিরাজ উদদৌলার রাজধানী কোথায় ছিল ?

সিরাজ উদদৌলার রাজধানী ছিল মুর্শিদাবাদে 


সিরাজ উদদৌলার পক্ষে কে ছিলেন ?

 মিরমদন সিরাজ উদদৌলার পক্ষে  ছিলেন ।


সিরাজ উদদৌলার বিপক্ষে কারা ছিলেন ?

রাজবল্লভ, ঘষেটি বেগম, ও মিরন সিরাজ উদদৌলার বিপক্ষে ছিলেন।


কী উদ্দেশ্যে অন্ধকূপ হত্যাকাণ্ড ঘটনাটি প্রচারিত হয় ?

নবাব সিরাজ উদদৌলাকে কলঙ্কিত করার জন্য অন্ধকূপ হত্যাকাণ্ড ঘটনাটি প্রচারিত হয়


আলিনগরের সন্ধি কাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয়েছিল ?

ইংরেজদের ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ও সিরাজ উদদৌলার মধ্যে আলিনগরের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল।


আলবুকার্কের সাম্রাজ্যবাদী নীতি কী নামে পরিচিত ?

 আলবুকার্কের সাম্রাজ্যবাদী নীতি নীলজল নীতি নামে পরিচিত  ।


১৬৯০ খ্রিস্টাব্দ কিসের জন্য বিখ্যাত ?

১৬৯০ খ্রিস্টাব্দে জবচার্নক হুগলি নদীর তীরে সুতানুটি গ্রামে বাণিজ্য কুঠি তৈরী করেন ।


সুরম্যান কে ?

মোগল সম্রাট ফারুকশিয়ারের দরবারে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির প্রতিনিধি ।


বাংলার প্রথম স্বাধীন নবাব কে ছিলেন ?

 মুর্শিদকুলি খাঁ বাংলার প্রথম স্বাধীন নবাব কে ছিলেন ।


ইংরেজরা বিদেরার যুদ্ধে কাদের পরাজিত করেন ?

ইংরেজরা বিদেরার যুদ্ধে ওলন্দাজদের পরাজিত করেন।


কত খ্রিস্টাব্দে আলিনগরের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ?

১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দে ৪ঠা ফেব্রুয়ারী  আলিনগরের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ।


পলাশির যুদ্ধ কোন বছর সংঘটিত হয় ?

 ১৭৫৭ খ্রিস্টাব্দের ২৩ শে জুন পলাশির যুদ্ধ সংঘটিত হয়।


পলাশির যুদ্ধে ইংরেজ সেনাপতি কে ছিলেন ?

লর্ড ক্লাইভ পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের সেনাপতি ছিলেন ।


মিরজাফর কে ছিলেন ?

- মিরজাফর পলাশির যুদ্ধের আগে বাংলার নবাব সিরাজ উদদৌলার প্রধান সেনাপতি এবং পলাশির যুদ্ধে  সিরাজ উদদৌলার পরাজয়ের পর বাংলার নবাব হন ।


পলাশির যুদ্ধের ফল কী হয়েছিল ?

পলাশির যুদ্ধে নবাব সিরাজ উদদৌলা পরাজিত হয়েছিলেন ও ইংরেজরা বিজয়ী হয় ।


পলাশির যুদ্ধের পর বাংলার নবাব কে হন ?

 পলাশির যুদ্ধের পর বাংলার নবাব হন মিরজাফর ।


বাংলার কোন নবাব মুর্শিদাবাদ থেকে মুঙ্গেরে রাজধানী স্থানান্তরিত করেন ?

 বাংলার নবাব মিরকাশিম মুর্শিদাবাদ থেকে মুঙ্গেরে রাজধানী স্থানান্তরিত করেন ।


বাংলার কোন নবাব মুর্শিদাবাদ থেকে মুঙ্গেরে রাজধানী স্থানান্তরিত করেন ?

 বাংলার নবাব মিরকাশিম মুর্শিদাবাদ থেকে মুঙ্গেরে রাজধানী স্থানান্তরিত করেন ।


বক্সারের যুদ্ধের সময় বাংলার নবাব কে ছিলেন ?

বক্সারের যুদ্ধের সময় বাংলার নবাব  ছিলেন মিরকাশিম ।


মিরকাশিমের পর কে বাংলার নবাব হন ?

 মিরকাশিমের পর বাংলার নবাব হন মিরজাফর ।


মিরজাফরের মৃত্যুর পর কে মুর্শিদাবাদের নানাব হয়েছিলেন ?

মিরজাফরের মৃত্যুর পর নজম-উদ্-দৌলা মুর্শিদাবাদের নানাব হয়েছিলেন ।


বক্সারের যুদ্ধ কত খ্রিস্টাব্দে হয় ?বক্সারের যুদ্ধ কত খ্রিস্টাব্দে হয় ?

১৭৬৪ খ্রিস্টাব্দে ২২ শে অক্টোবর বক্সারের যুদ্ধ হয় ।


বক্সারের যুদ্ধ কাদের মধ্যে হয়েছিল ?

 বাংলার নবাব মিরকাশিম ও ইংরেজদের মধ্যে বক্সারের যুদ্ধ হয়েছিল । এই যুদ্ধে মোগল সম্রাট শাহ আলম এবং অযোধ্যার নবাব সুজাউদদৌলা মিরকাশিমকে ।


বক্সারের যুদ্ধের সময় মোগল সম্রাট কে ছিলেন ?

বক্সারের যুদ্ধের সময় মোগল সম্রাট  ছিলেন দ্বিতীয় শাহ আলম 


এলাহাবাদের প্রথম সন্ধি কাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয় ?

ইংরেজ কোম্পানি এবং অযোধ্যার নবাবের মধ্যে এলাহাবাদের প্রথম সন্ধি স্বাক্ষরিত হয় ।


বেসিনের সন্ধি কাদের মধ্যে স্বাক্ষরিত হয় ?

মারাঠা পেশোয়া দ্বিতীয় বাজিরাও এবং ইংরেজদের মধ্যে বেসিনের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়।


বেসিনের সন্ধি কবে স্বাক্ষরিত হয় ?

১৮০২ খ্রিস্টাব্দে বেসিনের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়  ।


কোন গভর্নর জেনারেলের শাসনকালে মারাঠা শক্তির চরম অবক্ষয় ঘটে ?

 গভর্নর জেনারেল ওয়ারেন হেস্টিংসের শাসনকালে মারাঠা শক্তির চরম অবক্ষয় ঘটে ।


ইলতুৎমিসের রজত্বের সময়কাল কী ছিল ?

 ইলতুৎমিস ১২১০ থেকে ১২৩৬ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত রাজত্ব করেছিলেন।


ইলতুৎমিসের সময় কোন মোঙ্গল নেতা ভারত অভিযানে আসেন ?

ইলতুৎমিসের সময় মোঙ্গল নেতা চেঙ্গিস খান ভারত অভিযানে আসেন ।


ইলতুৎমিসের মৃত্যুর পর কে দিল্লীর সিংহাসনে বসেছিলেন ?

 ইলতুৎমিসের মৃত্যুর পর রুকনউদ্দিন ফিরোজ দিল্লীর সিংহাসনে বসেছিলেন ।


সুলতানা রাজিয়া কে ছিলেন ?

সুলতানা রাজিয়া ছিলেন দিল্লীর সুলতান ইলতুৎমিসের কন্যা , পরে দিল্লীর সুলতান হয়েছিলেন ।


দিল্লীর কোন সুলতান বাজারদর নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন ?

 সুলতান আলাউদ্দিন খলজি বাজারদর নিয়ন্ত্রণ করেছিলেন ।


মালিক কাফুর কে ছিলেন ?

 মালিক কাফুর ছিলেন আলাউদ্দিনের বিখ্যাত সেনাপতি এবং দক্ষিণ ভারত অভিযানের নায়ক ।


খলজি বংশের শেষ সুলতান কে ?

 সুলতান মোবারক খলজি ছিলেন খলজি বংশের শেষ সুলতান ।


দিল্লীর কোন সুলতান কর্ম-নিয়োগ দপ্তর স্থাপন করেন ?

সুলতান ফিরোজ শাহ দিল্লীর কর্ম-নিয়োগ দপ্তর স্থাপন করেন ।সুলতান ফিরোজ শাহ দিল্লীর কর্ম-নিয়োগ দপ্তর স্থাপন করেন ।সুলতান ফিরোজ শাহ দিল্লীর কর্ম-নিয়োগ দপ্তর স্থাপন করেন ।v


সুলতানি যুগে দাক্ষিণাত্যে যে দুটি নতুন রাজ্য স্থাপিত হয় তাদের নাম কী ?

 সুলতানি যুগে দাক্ষিণাত্যে যে দুটি নতুন রাজ্য স্থাপিত হয় তাদের নাম বাহমনি ও বিজয়নগর ।


সুলতানি যুগে দাক্ষিণাত্যে যে দুটি নতুন রাজ্য স্থাপিত হয় তাদের নাম কী ?

 সুলতানি যুগে দাক্ষিণাত্যে যে দুটি নতুন রাজ্য স্থাপিত হয় তাদের নাম বাহমনি ও বিজয়নগর ।


আমির-ই-কোহি নামে কৃষিবিভাগ কে সৃষ্টি করেন ?

সুলতান মহম্মদ-বিন-তুঘলক আমির-ই-কোহি নামে কৃষিবিভাগ সৃষ্টি করেন ।


প্রথম পাণিপথের যুদ্ধে কে কার কাছে পরাজিত হয় ?

 প্রথম পাণিপথের যুদ্ধে দিল্লীর শেষ সুলতান ইব্রাহিম লোদী মধ্য এশিয়া থেকে আগত মোগল বীর জহিরউদ্দিন মহম্মদ বাবরের কাছে পরাজিত হয়েছিলেন ।


প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ কাদের মধ্যে হয়েছিল ?

দিল্লীর শেষ সুলতান ইব্রাহিম লোদী এবং মোগল নেতা বাবরের সঙ্গে প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ হয়েছিল   ।


প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ কাদের মধ্যে হয়েছিল ?

দিল্লীর শেষ সুলতান ইব্রাহিম লোদী এবং মোগল নেতা বাবরের সঙ্গে প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ হয়েছিল   ।


প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ কবে সংঘটিত হয়েছিল ?

প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ ১৫২৬ খ্রিস্টাব্দে সংঘটিত হয়েছিল ।


প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ কবে সংঘটিত হয়েছিল ?

প্রথম পাণিপথের যুদ্ধ ১৫২৬ খ্রিস্টাব্দে সংঘটিত হয়েছিল ।


তুঘলক বংশের শ্রেষ্ঠ সুলতান কে ছিলেন ?

 তুঘলক বংশের শ্রেষ্ঠ সুলতান ছিলেন সুলতান মহম্মদ-বিন-তুঘলক ।


লোদী বংশের শেষ সুলতান কে ছিলেন ?

- সুলতান ইব্রাহিম লোদী ছিলেন লোদী বংশের শেষ সুলতান ।


খানুয়ার যুদ্ধ কবে সংঘটিত হয়েছিল ?

খানুয়ার যুদ্ধ ১৫২৭ খ্রিস্টাব্দে সংঘটিত হয়েছিল ।


খানুয়ার যুদ্ধে বাবরের প্রতিপক্ষ কে ছিলেন ?

 খানুয়ার যুদ্ধে বাবরের প্রতিপক্ষ ছিলেন মেবারের রাণা সংগ্রাম সিংহের ।


কোন বছর ঘর্ঘরার যুদ্ধ হয়েছিল ?

 ১৫২৯ খ্রিস্টাব্দে ঘর্ঘরার যুদ্ধ হয়েছিল ।


ঘর্ঘরার যুদ্ধ কোথায় হয়েছিল ?

 পাটনার কাছে ঘর্ঘরা নদীর তীরে ঘর্ঘরার যুদ্ধ হয়েছিল ।


ঘর্ঘরার যুদ্ধ কাদের মধ্যে হয়েছিল ?

 বাংলা ও বিহারের আফগানদের শক্তি-জোটের সঙ্গে মোগল সম্রাট বাবরের ঘর্ঘরার যুদ্ধ হয়েছিল ।


দিল্লীর সম্রাটদের মধ্যে কবুলিয়ৎ ও পাট্টার প্রবর্তন কে করেন ?

 দিল্লীর সম্রাটদের মধ্যে কবুলিয়ৎ ও পাট্টার প্রবর্তন করেন শেরশাহ ।


আকবার কে ছিলেন ?

আকবার ছিলেন মোগল সম্রাট হুমায়ুনের পুত্র এবং পরবর্তীকালে মোগল সম্রাট ।


দ্বিতীয় পাণিপথের যুদ্ধ কবে সংঘটিত হয়েছিল ?

 ১৫৫৬ খ্রিস্টাব্দে দ্বিতীয় পাণিপথের যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল ।


দ্বিতীয় পাণিপথের যুদ্ধ কাদের মধ্যে সংঘটিত হয়েছিল ?

 দ্বিতীয় পাণিপথের যুদ্ধ আকবর ও শূরবংশের সেনাপতি হিমুর মধ্যে সংঘটিত হয়েছিল ।


১৫৭৬ খ্রিস্টাব্দে হলদিঘাটের যুদ্ধ কাদের মধ্যে সংঘটিত হয় ?

১৫৭৬ খ্রিস্টাব্দে হলদিঘাটের যুদ্ধ মোগল সম্রাট আকবর ও মেবারের রাণা প্রতাপ সিংহের  মধ্যে সংঘটিত হয় ।


রাণা প্রতাপ কোন যুদ্ধে মোগলদের কাছে পরাজিত হন ?

১৫৭৬ খ্রিস্টাব্দে হলদিঘাটের যুদ্ধে রাণা প্রতাপ মোগলদের কাছে পরাজিত হন ।


মনসবদারি প্রথা কে প্রচলন করেন ?

 মোগল সম্রাট আকবর মনসবদারি প্রথা প্রচলন করেন ।


মিঞা তানসেন কার দরবারে বিরাজ করতেন ?

মিঞা তানসেন সম্রাট আকবরের দরবারে বিরাজ করতেন ।


বাবরের মৃত্যুর পর কে মোগল সম্রাট হন ?

- বাবরের মৃত্যুর পর বাবরের জ্যৈষ্ঠপুত্র হুমায়ুন মোগল সম্রাট হন   ।


শেরশাহ কোন বংশীয় ব্যক্তি ছিলেন ?

 শেরশাহ আফগান বংশীয় ব্যক্তি ছিলেন ।


শেরশাহের পূর্ব নাম কী ?

 শেরশাহের পূর্ব নাম ফরিদ খাঁ ।


ভারতবর্ষে শেরশাহের প্রতিদ্বন্দ্বী কে ছিলেন ?

ভারতবর্ষে শেরশাহের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন হুমায়ুন ।


কোন যুদ্ধে হুমায়ুন শেরশাহের কাছে পরাজিত হন ?

কোন যুদ্ধে হুমায়ুন শেরশাহের কাছে পরাজিত হন ?


ভারতবর্ষে শেরশাহের প্রতিদ্বন্দ্বী কে ছিলেন ?

ভারতবর্ষে শেরশাহের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন হুমায়ুন ।


কোন যুদ্ধে হুমায়ুন শেরশাহের কাছে পরাজিত হন ?

কনৌজের যুদ্ধে হুমায়ুন শেরশাহের কাছে পরাজিত হন ।


কনৌজের যুদ্ধ কবে সংঘটিত হয়েছিল ?

১৫৪০ খ্রিস্টাব্দে কনৌজের যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল ।


‘চণ্ডীমঙ্গল কাব্যের রচয়িতা কে?

মুকুন্দরাম চক্রবর্তী। (রচনাকাল ষোড়শ শতক)।


.জাতীয় স্মৃতিসৌধের স্থপতি কে?

 সৈয়দ মাইনুল হোসেন.


বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থান কোনটি?

 ৮৮০ ০১’ ৯২০-৪১’ দক্ষিণ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে


বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে সরকারের বড় অর্জন কোনটি?

সমুদ্র বিজয় (অর্জন…ছিটমহল এসব, বাকি সব চলমান প্রক্রিয়া)


MDG –এর অন্যতম লক্ষ্য কি?

 ক্ষুধা ও দারিদ্র দূর করা


YALTA Conference” এর একটি লক্ষ্য ছিল-

 জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠা


স্তাবিত নৌ টর্মিনাল হবে

 ঢাকার পানগাওয়ে


দেশের প্রাথমিক শিক্ষা বর্তমানে

৮ম শ্রেণী প্রর্যন্ত


দেশের মুদ্রণশিল্প নগরী নির্মিত হচ্ছে

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে


দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় প্রকল্পের নাম
  • রূপপুর পারমানবিক বিদ্যু্ত কেন্দ্র

মোট জনসংখ্যার অনুপাতে বিভিন্ন মহাদেশের মুসলিম জনসংখ্যার শতকরা হারঃ ?

★ এশিয়া- ২৪%
★ ইউরোপ- ১%
★ আফ্রিকা- ৫৯%
★ উত্তর আমেরিকা- ১.৫%
★ দক্ষিণ আমেরিকা- ০.৫০%